admin
সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০
  • No Comments

    নদী পথে অসহনীয় দূর্ভোগ চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ উপজেলার সারে-৪ লক্ষ মানুষের

     
    মোঃ নেয়ামত উল্লাহ রিয়াদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
    চট্টগ্রামের বিছিন্ন দ্বীপ উপজেলা সন্দ্বীপ
    চট্টগ্রাম থেকে এ দ্বীপে যাতায়াতের এক মাত্র মাধ্যম
    নদী পথ।
    আর এ নদী পথ পাড়ি দিতে সীমাহীন দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এ দ্বীপের সারে ৪ লক্ষ মানুষের ।
    চট্টগ্রাম থেকে স্পিড বোড বা ট্রলারে উঠা নামার সুবিধা থাকলে সন্দ্বীপের গুপ্তাছড়া ঘাটের বোহাল দশা
    দুই দুটি ব্রীজ থাকলে জন সাধারণের কোন কাজেই আসছে না!
    নারী পুরুষ শিশু বৃদ্ধা অসুস্থ সকলকেই কোমড় পানিতে নেমে স্পিড বোট ট্রলার এ উঠতে হয়।
    সাব মেরিন ক্যাবলস এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ আসার পর সর্ব সাধারনের দ্বীপে পুরো দৃশ্যটাই পাল্টে গেছে, তবে আরো পাল্টে যেতে পারতো নদী পথের যোগাযোগ ব্যবস্থার কিন্তু না দিনকে দিন দূর্ভোগ বেড়েই চলছে।
    একটা দ্বীপের সবচেয়ে বড় উন্নয়ন হচ্ছে যোগাযোগ ব্যাবস্থা কিন্তু আগের ছেড়ে খারাপ অবস্থা তাই হতাশ এ দ্বীপের মানুষ যোগাযোগ ব্যাবস্থার দিকে ওই সৃষ্টিকর্তা ছাড়া মনে হয় দেখার কেউ নেই। অনেই মনে করছেন এ দ্বীপে জন্ম গ্রহণ করা অভিশাপ।
    সরকার যায় সরকার আসে কিন্তু আজো উন্নয়ন হয়নি যাতায়াত ব্যবস্থার।
    ১৪ কোটি টাকা ব্যায়ে খাল খনন করে সন্দ্বীপ নৌ বন্দর করার কথা থাকলে ও এখন পর্যন্ত কাজের তেমন কোন অগ্রগতি নেই।
    তাই হতাশ নির্বাক এ অঞ্চলের মানুষ।
    ইতিমধ্যে সরকারিভাবে ঘোষণা এসেছে সন্দ্বীপকে মিনি সিঙ্গাপুর করার। কিন্তু দ্বীপের জন সাধারণ মিনি সিঙ্গাপুর চায় না তাদের একটাই দাবী খাল খনন করে বন্দর বা পল্টন স্থাপন করে যাতে নিরাপদে উঠা নামার করতে পারে এটাই দ্বীপের সাথে ৪ লক্ষ মানুষের প্রাণের দাবী।
    ছবিতে কোমড় পানিতে নেমে স্পিড বোট ট্রলারে উঠার দৃশ্য ছবিঃ কালেক্টেড